বৃহস্পতিবার   ১৩ জুন ২০২৪ , ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:০১, ২১ মে ২০২৪

আপডেট: ১৮:০১, ২১ মে ২০২৪

ভর্তি বাতিলের আদেশ বহাল ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর

ভর্তি বাতিলের আদেশ বহাল ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর

বয়সসীমা না মেনে বিধিবহির্ভূতভাবে ভর্তি হওয়া ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রথম শ্রেণির ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রেখে রায় দিয়েছে হাই কোর্ট।

একই সঙ্গে অপেক্ষমান তালিকা থেকে শূন্য আসনে ভর্তি এবং এই ভর্তি প্রক্রিয়ায় সংঘটিত অনিয়ম তদন্তে একটি কমিটি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এক রিট মামলার নিষ্পত্তি করে বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের বেঞ্চ মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করে।

রিটকারী পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট শামীম সরদার, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী মঈনুল হাসান। ১৬৯ শিক্ষার্থীর পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

রায় ঘোষণার পর অ্যাডভোকেট শামীম সরদার বলেন, ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলের আদেশ বহাল রেখে তাদের শূন্য আসনে অপেক্ষমান তালিকা থেকে ভর্তির নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এই ভর্তি প্রক্রিয়ায় দুর্নীতির বিষয়েও রায়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকের দুর্নীতির তদন্তে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

২০২৪ সালে ভিকারুননিসা নূন স্কুলের বিভিন্ন শাখায় প্রথম শ্রেণিতে এই ১৬৯ শিক্ষার্থীকে ভর্তিতে অনিয়মের অভিযোগ তুলে দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক স্কুল কর্তৃপক্ষ বরাবর একটি আবেদন করেছিলেন।

ওই আবেদনে সাড়া না পেয়ে তারা ওই ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি চ্যালেঞ্জ করে হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন। তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৩ জানুয়ারি হাই কোর্ট দরখাস্তটি ১০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয় এবং রুল জারি করে।

হাই কোর্টের আদেশ অনুযায়ী ২৮ ফেব্রুয়ারি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) তাদের সিদ্ধান্ত হাই কোর্টে উপস্থাপন করে।

সেখানে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের চারটি শাখায় ২০২৪ শিক্ষাবর্ষে প্রথম শ্রেণিতে বিধিবহির্ভূতভাবে ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করে জরুরিভিত্তিতে মাউশিকে অবহিত করতে বলা হয়।

ওইদিন শুনানি নিয়ে হাই কোর্ট মাউশির ওই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন বিষয়ে হলফনামা আকারে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষকে ৬ মার্চের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয়।

এর ধারাবাহিকতায় ২০২৪ শিক্ষাবর্ষে প্রথম শ্রেণির ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করা হয়েছে বলে হাই কোর্টকে জানায় স্কুল কর্তৃপক্ষ। এরপর ১৬৯ শিক্ষার্থীর শূন্য আসনে অপেক্ষমান তালিকা থেকে শিক্ষার্থী ভর্তির নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট।

এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে যান ভর্তি বাতিল হওয়া শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।

গত ২০ মার্চ আপিল বিভাগ ১৬৯টি শূন্য আসনে অপেক্ষমান তালিকা থেকে ভর্তি করাতে হাই কোর্টের দেওয়া আদেশে স্থিতাবস্থা দেয় এবং দুই মাসের মধ্যে হাই কোর্টকে এ সংক্রান্ত জারি করা রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ দেওয়া হয়। ওই আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে এ রায় এল।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়